চাকরির প্রলোভনে ধর্ষণ, যুবকের যাবজ্জীবন

রংপুরে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে এক তরুণীকে ধর্ষণের অপরাধে তোজাম্মেল হোসেন (২৫) নামে এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে আসামিকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে, আরও দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ প্রদান করা হয়।

বুধবার (৬ জুলাই) দুপুরে রংপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩ এর বিচারক এম আলী আহমেদ এ রায় প্রদান করেন।

ধর্ষণ মামলায় আসামি তোজাম্মেল হোসেন আদালতে দোষী সাব্যস্ত হলেও বেকসুর খালাস পেয়েছেন সানাউল ইসলাম নামে আরেক আসামি। রায় ঘোষণার সময়ে তারা দুজন আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০২০ সালের ২৯ জুন রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার পাঁচগাছী গ্রামের মৃত তোফাজ্জল ফকিরের ছেলে তোজাম্মেল হক একই উপজেলার ছিট জাহাঙ্গীরাবাদ গ্রামের এক তরুণীকে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে ঢাকায় নিয়ে যান। সেখানে ঢাকার অদূরে গাজীপুরে এবং পরবর্তীতে নীলফামারীর জলঢাকাতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করেন।

এ ঘটনায় ওই তরুণীর বাবা বাদী হয়ে তোজাম্মেল হোসেন ও সানাউন ইসলাম নামে এক সিএনজি চালককে আসামি করে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ তদন্ত শেষে আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। আদালত ওই মামলায় বাদী ও বিবাদী পক্ষের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে বুধবার দুপুরে আসামি তোজাম্মেল হোসেনকে দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ প্রদান করেন। একই সঙ্গে তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে, আরও দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন। মামলা থেকে সানাউন ইসলামকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পিপি তাজিবুর রহমান লাইজু রায় ঘোষণার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বাদীপক্ষ রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। অপরদিকে আসামিপক্ষে ছিলেন আইনজীবী জাকিয়া আক্তার। তিনি এ রায় নিয়ে কোনো মন্তব্য করেননি।

You might also like