জাতীয় ঈদগাহে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত

করোনা মহামারির কারণে দুই বছর বন্ধ থাকার পর হাইকোর্ট সংলগ্ন জাতীয় ঈদগাহ মাঠে মুসলিম উম্মাহর সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩ মে) সকাল সাড়ে ৮টায় ঈদের জামাত শুরু হয়। প্রধান ঈদ জামাতের ইমামতি করেন জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের খতিব মুফতি রুহুল আমীন।

জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে প্রধান বিচারপতি, সুপ্রিম কোর্টের উভয় বিভাগের বিচারপতি, মন্ত্রিপরিষদের সদস্য, বিদেশি কূটনীতিক, বিভিন্ন বাহিনীর প্রধান, রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিসহ সাধারণ মুসল্লিরাও ঈদের নামাজ আদায় করেন।

এখনো করোনা মহামারির প্রার্দুভাব থাকায় এবার রাষ্টপতি আবদুল হামিদ বঙ্গভবন দরবার হলে ঈদের নামাজ আদায় করবেন। করোনা মহামারির কারণে গত দুই বছর জাতীয় ঈদগাহে ঈদের জামাত হয়নি।

সকাল থেকে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজার হাজার মানুষ জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে আসেন। কয়েক স্তরের নিরাপত্তা চেক অতিক্রম করে লম্বা লাইন ধরে জাতীয় ঈদগাহে প্রবেশ করেন মুসল্লিরা।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে জাতীয় ঈদগাহে প্রধান ঈদ জামাত প্রস্তুতি নেওয়া হয়। সিটি করপোরেশনের হিসেবে জাতীয় ঈদগাহে একসঙ্গে ৩৫ হাজার মানুষের নামাজ পড়ার সক্ষমতা থাকলেও অনেক বেশি মুসল্লি প্রধান ঈদ জামাতে অংশ নেন।

প্রধান ঈদ জামাত থেকে দেশ ও জনগণ এবং মুসলিম উম্মাহর কল্যাণ ও শান্তি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। নামাজ শেষে ঈদের চিরাচরিত ঐতিহ্য অনুযায়ী অনেকে কোলাকুলি করেন।

জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে জায়গা না পেয়ে শত শত মুসল্লি হাইকোর্ট সংলগ্ন জাতীয় ঈদগাহের সামনের রাস্তায় ঈদের নামাজ আদায় করেন।

সকাল থে‌কে রাজধানীর বি‌ভিন্ন এলাকা থে‌কে হাজার হাজার ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা ঈ‌দের প্রধান জামা‌তে শ‌রিক হওয়ার জন্য ছু‌টে আসেন জাতীয় ঈদগা‌হে। তাদের অনেকের হাতে জায়নামাজসহ ছাতাও দেখা যায়। এবার স্বাস্থ্য সংক্রান্ত কোনো বিধিনিষেধ না থাকলেও নামাজে আসা অনেকের মুখেই মাস্ক দেখা যায়।

You might also like