ঝালকাঠি বাস টার্মিনাল: নেই যাত্রী ছাউনি, টয়লেট কিংবা বিশ্রামাগার

৩২

দেশের ৬৩টি জেলা শহরে আধুনিক বাস টার্মিনাল থাকলেও নেই, ঝালকাঠিতে। ৩২ বছর আগের জরাজীর্ণ আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল নিয়ে নাজেহাল বাস মালিক সমিতি ও যাত্রীরা। বর্ষা মৌসুমে জলাবদ্ধতা আর শীতে ধুলাবালিতে নাকাল সবাই। তবে পৌর কর্তৃপক্ষ বলেছে, টার্মিনালটি আধুনিকায়নের জন্যে একটি প্রকল্প বাস্তবায়নের প্রস্তাব ইতিমধ্যে পাঠানো হয়েছে।

১৯৮৮ সালে, এক একর জমি নিয়ে শহরের কৃষ্ণকাঠি এলাকায় ঝালকাঠি কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালটি স্থাপন করা হয়। তবে, দীর্ঘ ৩২ বছরে এ টার্মিনালটিতে আধুনিকায়ন তো দূরের কথা আদৌ উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি।

নেই যাত্রী ছাউনি, টয়লেট কিংবা বিশ্রামাগার। যেখানে সেখানে ময়লা ফেলায় দুর্গন্ধে নাজেহাল যাত্রী, বাস চালক ও শ্রমিকরা। খানাখন্দে ভরে গেছে টার্মিনাল এলাকা। সীমানা প্রাচীর না থাকায় চুরি হয়ে যায় বাসের যন্ত্রাংশ। জরাজীর্ণ টিকিট কাউন্টারগুলোতে বসে থাকাও দায়।

ঝালকাঠির সাথে ঢাকা এবং বিভিন্ন জেলার দুরপল্লার বাসসহ অভ্যন্তরীণ ৮ রুটে শতাধিকের বেশি বাস চলাচল করে। বেশিরভাগ দূরপাল্লার বাসই টার্মিনালে ঢুকতে না পেরে, যাত্রী ওঠা-নামা করে রাস্তায়। এতে দুর্ঘটনাও বাড়ছে দিন দিন।

তবে পৌর কর্তৃপক্ষ বলছে, টার্মিনালটি আধুনিকায়নের জন্য একটি প্রকল্প বাস্তবায়নের প্রস্তাব ইতিমধ্যে পাঠানো হয়েছে। অনুমোদন পেলেই খুব দ্রুত এর সংস্কার কাজ শুরু হবে।

দেশের সব জেলায় আধুনিক বাস টার্মিনাল থাকলেও নেই ঝালকাঠিতে। তাই একটি আধুনিক বাস টার্মিনালের দাবি ঝালকাঠিবাসীর।

You might also like