টেকনাফ উপকূলে ট্রলারডুবি: সৈকতে ভেসে এলো শিশুর লাশ

অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে কক্সবাজারের টেকনাফে বঙ্গোপসাগরের উপকূলে ট্রলারডুবির ঘটনায় এক শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) রাতে উখিয়ার মনখালী সমুদ্র সৈকত থেকে লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ নিয়ে ট্রলারডুবির ঘটনায় চার জনের লাশ উদ্ধার হলো।

উখিয়ার ইনানী পুলিশ ফাঁড়ির এসআই সাইদুল রহমান জানান, রাতে খবর পেয়ে ইনানী পুলিশের সদস্যরা মনখালী সমদ্র সৈকতে এক শিশুর লাশ ভেসে আসার খবর দেন স্থানীয়রা। পরে সেখান থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশটি মঙ্গলবার রোহিঙ্গাবোঝাই ট্রলারডুবির ঘটনায় নিহত শিশুর হওয়ায় টেকনাফ শামলাপুর পুলিশে হস্তান্তর করা হয়েছে। তার বয়স আনুমানিক ৩ থেকে ৫ বছর।

এর আগে মঙ্গলবার ভোরে টেকনাফের বাহারছড়া উপকূলে ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটে। এরপর সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত রোহিঙ্গাসহ ৪৫ জনকে জীবিত ও তিন নারীকে মৃত উদ্ধার করেন কোস্ট গার্ডের সদস্যরা। জীবিতদের মধ্যে আট জন রোহিঙ্গা নারী, ৩৩ জন পুরুষ ও চার জন বাংলাদেশি।

নিহতরা হলেন- উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্প-৪ এর তৈয়বা খাতুন (১৮), কিসমত আরা (১৭) ও ক্যাম্প-১৮ এর উম্মে সালমা (১৮)। রাতে মৃত উদ্ধার শিশুর পরিচয় জানা যায়নি।

বাহারছড়া কোস্ট গার্ড স্টেশনের কনটিজেন্ট কমান্ডার দেলোয়ার হোসেন জানান, সোমবার রাতে মালয়েশিয়ায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে কয়েকজন দালাল রোহিঙ্গাদের নিয়ে অবৈধভাবে সাগরপথে যাত্রা শুরু করে। কিন্তু বাহারছড়া উপকূলে এসে ট্রলারটি ডুবে যায়। মঙ্গলবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ৪৫ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে বাংলাদেশি চার জন। তারা মানবপাচারকারী চক্রের সদস্য। বাকিরা কক্সবাজারের বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা।

You might also like