ট্রেনে কাটা পড়ে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪

নীলফামারীর দারোয়ানীতে লেভেলক্রসিংয়ে সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেনে কাটা পড়ে উত্তরা ইপিজেডের চার শ্রমিক নিহত হয়েছেন। এ সময় গুরুতর আহত হয়েছেন অটোরিকশার চালকসহ আরও পাঁচ শ্রমিক। বুধবার (২৬ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সকালে অটোরিকশাযোগে উত্তরা ইপিজেডের ৮ জন নারী শ্রমিক কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন। অটোরিকশাটি দারোয়ানী লেভেলক্রসিং অতিক্রম করার সময় খুলনা থেকে ছেড়ে আসা চিলাহাটিগামী সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেনটি অটোরিকশাটিকে ধাক্কা দেয়। এ সময় অটোরিকশাটি কয়েক ফুট দূরে ছিটকে পড়ে।

এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান সদরের সোনারায় ইউনিয়নের ধনীপাড়ার আশরাফ আলীর স্ত্রী শেফালী বেগম (৩৫)। পরে এলাকাবাসীর সহায়তায় ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যান।

হাসপাতালে নেওয়ার পথে কোরানীপাড়ার বেলাল হোসেনের স্ত্রী সাহেরা বেগম (৩৩) ও ধনীপাড়ার মোশাররফ হোসেন বদির স্ত্রী রোমানা আক্তারের (২৫) মৃত্যু হয়। রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান ধনীপাড়ার আরমান হোসেনের স্ত্রী মিনারা বেগম (৩১) মারা যান।

এ দুর্ঘটনায় আহতরা হলেন অটোরিকশা চালক আপন হোসেন (২৮), যাত্রী নাজমিন আকতার (৩০), মিনা আকতার (৩০), রওশন আরা (৩৪) ও রোমানা আকতার (২৮)। তাদের সবার বাড়ি সদরের সোনায়ায় ইউনিয়নের ধনীপাড়া এলাকায়।

সৈয়দপুর রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রহমান বিশ্বাস চারজনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে বলেন, ঘন কুয়াশার কারণে দুর্ঘটনাটি ঘটতে পারে।

You might also like
%d bloggers like this: