তবুও সেরার তকমা একমাত্র কঙ্গনা’র!

সবার সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে নারাজ এই নায়িকা। ভালো-মন্দ সবকিছু মুখে উপর বলে দেন বলেই বলিউডে সময় অসময় আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে চলে আসেন এই অভিনেত্রী। সিনেমার কাজে কোন ছাড় দেননা কঙ্গনা।

বলিউডের ঠোঁটকাটা অভিনেত্রী হিসেবেই পরিচিত কঙ্গনা রানাওয়াত। তবে কাজে বেশ তুখোড় এই অভিনেত্রী। বেছে বেছে সিনেমায় অভিনয় করেন তিনি। আর ছবিগুলোও প্রেক্ষাগৃহে করে বাজিমাত।

সব বিতর্ককে পাশে রেখে ফের কঙ্গনা প্রমাণ করলেন তিনিই বলিউডের কুইন। এই নিয়ে চতুর্থবারের মতো ভারতীয় চলচ্চিত্রের জাতীয় পুরস্কার নিজের ঝুলিতে তুললেন কঙ্গনা। এবছর ‘মণিকর্ণিকা’ ও ‘পাঙ্গা’ ছবির জন্য কঙ্গনা পেলেন সেরা অভিনেত্রীর এই সম্মান।

এদিকে, এর আগে ২০১৫ সালে ‘কুইন’ এবং ২০১৬ সালে ‘তন্নু ওয়েডস মন্নু’-র জন্য সেরা অভিনেত্রীর জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিলেন এই অভিনেত্রী। ২০১০ সালে ‘ফ্যাশন’ ছবির জন্য সেরা-সহঅভিনেত্রী হিসেবে জাতীয় পুরস্কারও পেয়েছিলেন তিনি।

দিল্লির বিজ্ঞানভবনে গেল ২৫ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হয়েছে ভারতের ৬৭তম ন্যাশনাল ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডস। করোনার কারণে এক বছর পিছিয়ে যাওয়ার পর গেল মার্চে ঘোষিত হয়েছিল বিজয়ীদের নাম।

এদিকে জাতীয় পুরস্কার পাওয়ার পর কঙ্গনা জানান, এই পুরস্কার শুধুই আমার নয়। মণিকর্ণিকা ও পাঙ্গার গোটা টিমের জন্য। সবাই দারুণ কাজ করেছে বলেই এই সাফল্য এসেছে। সবাইকে শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ।

You might also like