তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ, র‌্যাবের শ্বাসরুদ্ধকর অভিযানে গ্রেপ্তার যুবক

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে ৯ বছর বয়সী এক কন্যাশিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে মো. শাহীন (১৯) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

বুধবার (৩০ মার্চ) রাতে চট্টগ্রামের জোরারগঞ্জ থানার বারৈয়ারহাট বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. নুরুল আবছার।

তিনি বলেন, ভুক্তভোগী শিশুটি সীতাকুণ্ডের একটি মাদরাসার ৩য় শ্রেণির ছাত্রী। গত ২৩ মার্চ ভিকটিমের মা-বাবা কাজের উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হন। ৩য় শ্রেণিতে পড়ুয়া শিশুটি মাদরাসার ক্লাস শেষ কর ঘটনার দিন আনুমানিক দুপুর ২টার দিকে বাড়িতে আসে। ঘরে কোনো লোক না থাকায় মো. শাহীন শিশুটিকে নানা প্রলোভন ও ম্যাজিক লাইট দেখাবে বলে নিজ ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে। ভিকটিমের চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে শাহীন তখন ঘর থেকে হয়ে কৌশলে পালিয়ে যায়। তখন স্থানীয়রা শিশুটির পরিবারকে ঘটনাটি জানায়।

পরে ভিকটিমের বাবা অসুস্থ শিশুটিকে সীতাকুণ্ড উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য কর্তব্যরত চিকিৎসক চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) পাঠান। শিশুটি এখন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

র‌্যাব কর্মকর্তা নুরুল আবছার বলেন, এ ঘটনায় ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে ২৭ মার্চ চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেন। মামলার পর থেকে মো. শাহীন নিজ এলাকা ছেড়ে বিভিন্ন জায়গায় আত্মগোপন করতে থাকেন। তাকে গ্রেপ্তারের জন্য র‌্যাব গোয়েন্দা নজরদারি এবং ছায়াতদন্ত শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার তাকে জোরারগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শাহিন র‌্যাবের কাছে ধর্ষণের সত্যতা স্বীকার করেছে। তাকে সীতাকুণ্ড থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

You might also like
%d bloggers like this: