দেশে ২৪ ঘন্টায় করোনায় সর্বোচ্চ আক্রান্ত ৫০৩, মারা গেছেন ৪ জন

দেশে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ৫০৩ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এটি একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যা। বর্তমানে এই ভাইরাসে আক্রান্ত ৪ হাজার ৬৮৯ জন।।

গত ২৪ ঘন্টায় ৪ জন করোনামুক্ত হয়েছেন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি গেছেন ১১২ জন।

গতকালের চেয়ে আজ আক্রান্ত বেড়েছে ৮৯ জন। গতকাল আক্রান্ত হয়েছিল ৪১৪ জন। এ ছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় দেশে আরও ৪ জন মারা গেছেন। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৩১ জনে।

আজ দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা এসব তথ্য জানান।

ডা.নাসিমা সুলতানা জানান, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের ২১টি পিসিআর ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৩ হাজার ৬৮৬টি। গতকালের চেয়ে নমুনা পরীক্ষার হার ৭.৯ শতাংশ বেশি। সব মিলিয়ে এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৩৯ হাজার ৭৭৬টি।

মারা যাওয়া ৪ জনই পুরুষ এবং সবাই ঢাকার বাসিন্দা। এদের সবারই বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে।
করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ধর্ম মন্ত্রণালয় আসন্ন রমজানে মসজিদে এশার ও তারাবির নামাজ আদায়ে যে নির্দেশনা (দুই হাফেজসহ ১২ মুসল্লি নিয়ে জামাত) দিয়েছে সেটা মেনে চলার আহ্বান জানান ডা. নাসিমা সুলতানা।

ইফতার মাহফিল বা এ ধরনের কোনো সামাজিক অনুষ্ঠান আয়োজন থেকেও বিরত থাকার আহ্বান জানান তিনি।

ডা. নাসিমা সুলতানা বলেন, নিজে সুস্থ থাকা এবং পরিবারের সদস্যদের সুস্থ রাখতে এ নির্দেশনাগুলো মেনে চলতে হবে।
তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে আছেন ১২৩ জন। মোট আইসোলেশনে আছেন ৯৯৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশন থেকে ছাড়া পেয়েছেন ২৮ জন। আইসোলেশন থেকে ছাড়া পেয়েছেন মোট ৬২২ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় হোম কোয়ারেন্টাইন ও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে এসেছেন ৩ হাজার ৬৯৬ জন। এ পর্যন্ত কোয়ারেন্টাইনে ১ লাখ ৫১ হাজার ৮৪৬ জন। গত ২৪ ঘন্টায় কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৫ হাজার ৯৫ জন। এ পর্যন্ত ছাড় পেয়েছেন ৮৯ হাজার ১১২ জন। হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন মিলিয়ে বর্তমানে আছেন ৮২ হাজার ৭৩৫ জন। সারাদেশের ৬৪ জেলা ও উপজেলা মিলিয়ে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের জন্য রয়েছে ৬০১টি প্রতিষ্ঠান। যেখানে তাৎক্ষণিকভাবে ৩০ হাজার ৬৩৫ জনকে কোয়ারেন্টাইন করা যায়।

অতিরিক্ত মহাপরিচালক জানান, গত ২৪ ঘন্টায় ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী (পিপিই) সংগ্রহ হয়েছে ৯ হাজার। বিতরণ হয়েছে ২৩ হাজার ২১৫টি। এ পর্যন্ত সংগ্রহ হয়েছে ১৫ লাখ ১৬ হাজার ১৯০টি। মোট বিতরণ করা হয়েছে ১২ লাখ ৪২ হাজার ৮টি এবং মজুদ আছে ২ লাখ ৭৪ হাজার ১০২টি।

অনলাইন নিউজ ডেস্ক/বিজয় টিভি

You might also like