দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুতেই বিপাকে বাংলাদেশ

৭৪

৭৮ রানের লিড নেওয়ার পর দ্বিতীয় ইনিংসের প্রথম ওভারে ঝড় তুলেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু পরের দুই ওভারে ফিরে গেলেন ওপেনাররা। তারপর মুমিনুল হক, সাকিব আল হাসান ও মোহাম্মদ মিঠুন পারেননি বেশিক্ষণ ক্রিজে থাকতে। চট্টগ্রাম টেস্টের দ্বিতীয় দিন ৫৩ রানে পাঁচটি উইকেট হারিয়েছে স্বাগতিকরা। ক্রিজে আছেন মেহেদী হাসান মিরাজ ও মুশফিকুর রহিম। ১৬ ওভারে ৫ উইকেটে বাংলাদেশ করেছে ৫৪ রান।

সৌম্য প্রথম ওভারে দুটি বাউন্ডারি মারেন। ১১ রান করে বাংলাদেশ। পরের ওভারের জোমেল ওয়ারিকানের কাছে বোল্ড হন ইমরুল কায়েস। মাত্র ২ রান করেন তিনি ৫ বল খেলে। রোস্টন চেজের বলে এরপর বিদায় নেন সৌম্য। ১০ বলে ১১ রান করে কার্লোস ব্র্যাথওয়েটকে ক্যাচ দেন এই ওপেনার।

তৃতীয় ওভারের শেষ বলে চেজের এলবিডাব্লিউর আবেদনে মোহাম্মদ মিঠুনকে আউটের সিদ্ধান্ত দেন আম্পায়ার। তবে রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান। তাকে নিয়ে মুমিনুল প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টায় ছিলেন। কিন্তু চেজের শিকার হন তিনি এলবিডাব্লিউর ফাঁদে পড়ে। ১২ রান করেন মুমিনুল ১১ বল খেলে। পরের ওভারে সাকিব স্লগ সুইপ করতে গিয়ে ডিপ মিডউইকেটে শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের ক্যাচ হন। মাত্র ১ রানে তিনি মাঠ ছাড়েন ওয়ারিকানের বলে।

দিন শেষ হওয়ার কিছুক্ষণ আগে ১৭ রানে দেবেন্দ্র বিশুর কাছে বোল্ড হন মিঠুন।

এর আগে নাঈম হাসানের স্পিনে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ২৪৬ রানে গুটিয়ে দেয় বাংলাদেশ।

জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় দিন লাঞ্চের পর ইনিংসের ২৫তম ওভারে নাঈমের হাতে বল তুলে দেন অধিনায়ক সাকিব। ৮ ওভারের প্রথম স্পেলে ৩৭ রানের বিনিময়ে দুই উইকেট নেন তরুণ অফস্পিনার। চা-বিরতির পর তো নাঈম রীতিমতো দুর্বার। দ্বিতীয় স্পেলে ৬ ওভার বল করে তার শিকার তিন উইকেট। ১৪-২-৬১-৫ বোলিং ফিগার একজন অভিষিক্ত ক্রিকেটারের জন্য স্বপ্নের মতো নিঃসন্দেহে।

নাঈম নেন ৫ উইকেট, তিনটি পান সাকিব।

নিউজ ডেস্ক / বিজয় টিভি

You might also like