ধর্মের সাথে সংস্কৃতির সংঘাতের সুযোগ নেই: মাননীয় প্রধানমন্ত্রী

দেশজুড়ে সাংস্কৃতিক চর্চার সুযোগ সৃষ্টিতে নানা উদ্যোগে নিয়েছে আওয়ামী লীগ সরকার। এর ধারাবাহিকতায় ৮ জেলায় নির্মিত হয়েছে শিল্পকলা একাডেমির নতুন ভবন। নান্দনিক স্থাপত্য রীতির এ সব ভবনে থাকছে ৫ থেকে ৬শ’ আসনের মিলনায়তন, আর্ট ক্যাফে ও সব ধরনের অনুষ্ঠান মঞ্চায়নের সুবিধা। বুধবার (১৩ এপ্রিল) ভার্চুয়ালি ভবনগুলোর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বক্তব্যে জাতীয় জীবনে সংস্কৃতি চর্চার গুরুত্ব তুলে ধরেন সরকারপ্রধান। বলেন, স্বাধীনতা সংগ্রামের সূচনা হয় সাংস্কৃতিক আন্দোলনের মাধ্যমে। এসময় ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে নানা সময় দেশের সংস্কৃতির ওপর আঘাত আসার কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

বাংলা সংস্কৃতির ওপর বারবার আঘাত এসেছে বলে জানান শেখ হাসিনা। বলেন, ধর্মের সাথে সংস্কৃতির সংঘাত সৃষ্টির অপচেষ্টা দুর্ভাগ্যজনক। এটা মোটেও সঠিক না। ধর্ম, যার যার ধর্ম। আমরা এটাই বলি, ধর্ম যার যার, উৎসব সকলের। কাজেই উৎসব আমরা সকলে এক হয়ে পালন করব।

দেশীয় ঐতিহ্য ধরে রাখার পাশাপাশি আধুনিক যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলার তাগিদ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বলেন, ‘আমাদের সংস্কৃতিচর্চা অব্যাহত রাখতে হবে। আমাদের ঐতিহ্য আমরা ভুলব না। আবার যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়েও চলতে হবে। কারণ আধুনিক যুগের যে সংস্কৃতি তার সঙ্গেও যাতে দেশের ছেলেমেয়েরা, তারাও যেন তার সঙ্গে মিল রেখে চলতে পারে বা সেই সংস্কৃতিও যেন তারা রপ্ত করতে পারে, চর্চা করতে পারে।

তিনি আরও বলেন, কাজেই আমি মনে করি, আমাদের ঐতিহ্যের সঙ্গে আধুনিক প্রযুক্তি এবং আধুনিক জ্ঞানও অর্জন করা একান্তভাবে দরকার। একটা থেকে আরেকটা বাদ দেয়া যাবে না। আমাদের সামনের দিকেও এগিয়ে যেতে হবে।

দেশবাসীকে রোজা, পহেলা বৈশাখ এবং ঈদের আগাম শুভেচ্ছা জানান সরকারপ্রধান। উৎসব উদযাপনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার তাগিদ দেন তিনি।

You might also like
%d bloggers like this: