পায়রা সেতুর উদ্বোধন আজ

পটুয়াখালীর পায়রা নদীর ওপর পায়রা সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। আজ রোববার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই সেতুর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন।

সেতুটি চালু হলে দক্ষিণাঞ্চলে সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থায় নবদিগন্তের সূচনা হবে, ফেরি পারাপারেরও দুর্ভোগ ঘুচবে। রাজধানী থেকে কক্সবাজারের চেয়েও কাছের হবে সূর্যোদয়-সূর্যাস্তের সমুদ্রসৈকত কুয়াকাটা।

এ সেতুর ফলে ঢাকা থেকে কুয়াকাটা পৌঁছতে সময় লাগবে ৬ থেকে ৭ ঘণ্টা। সম্ভাবনার দ্বার খুলে যাবে কুয়াকাটা পর্যটন শিল্পের। পায়রা সেতু চালুর মধ্য দিয়ে ঢাকার সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগের পথ সুগম হবে পর্যটন নগরী কুয়াকাটা, পায়রা সমুদ্রবন্দর, পায়রা তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র, কোস্টগার্ডের সিজি-বেইজ অগ্রযাত্রা, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজসহ দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানগুলোর।

সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে কর্ণফুলী সেতুর আদলে নির্মিত দৃষ্টিনন্দন এই সেতুটি উদ্বোধন করবেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। পটুয়াখালীর দুমকী উপজেলার লেবুখালী সেতু এলাকায় থাকবে অনুষ্ঠানের মূল আয়োজন।

সেতু এলাকার অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন বরিশাল বিভাগের জাতীয় সংসদ সদস্যরা, উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। অনুষ্ঠানটি সুন্দরভাবে সম্পন্ন করার জন্য ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে বলে জানান পায়রা সেতু প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মোহাম্মদ আব্দুল হালিম।

দৃষ্টিনন্দন পায়রা সেতুটি এখন ভ্রমণপিপাসু পর্যটকদের হাতছানি দিচ্ছে। বর্ণিল আলোকসজ্জায় রাতে পুরো এলাকায় অনুপম সৌন্দর্য ছড়িয়ে পড়ে। প্রতিদিন বিকেলে ও সন্ধ্যায় সেতুর দুই পাড়ে স্থানীয় ভ্রমণপিপাসুরা ছুটে যান এবং উপভোগ করেন সৌর বিদ্যুতে আলোকিত দৃষ্টিনন্দন এই সেতুটি। তবে সেতুর দুই প্রান্তের গেট বন্ধ থাকায় মূল সেতুতে কেউ উঠতে পারছেন না। উদ্বোধনীর পর যানবাহন চলাচল শুরু হলে পায়রা সেতুকে ঘিরে পর্যটন কেন্দ্র গড়ে উঠবে বলে আশা করা হচ্ছে।

You might also like