পেঁপে চাষে ভাগ্যবদল!

দীর্ঘ ৩০ বছর যাবত পেঁপে চাষ করছেন কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার যশোদল ইউনিয়নের, কালিকা বাড়ি গ্রামের মোশারফ হোসেন। প্রথমে অল্প জমিতে বাণিজ্যিকভাবে চাষ শুরু করলেও দিন দিন চাহিদা বাড়ার পাশাপাশি সঠিক মূল্য পাওয়ায় বর্তমানে, সাড়ে ৬ একর জমিতে পেঁপে চাষ করেছেন তিনি।

এই জমি থেকে বছরে উৎপাদিত পেঁপের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৩শ’ মেট্রিক টন। প্রতি বছরের মতো এই বছরও লাভের আশা করছেন মোশারফ হোসেন।

বিষমুক্ত এই পেঁপে স্থানীয় খাদ্য চাহিদা পূরণের পাশাপাশি চাহিদা মেটাচ্ছে দেশের বিভিন্ন জেলার মানুষের। এতে করে একদিকে যেমন লাভবান হচ্ছেন মোশারফ হোসেন তেমনি তার পেঁপে বাগানে কাজ করে স্বচ্ছলভাবে জীবনযাপন করছেন অনেকেই। এছাড়া তার সাফল্য দেখে স্থানীয় অনেকেই এই শাহী জাতের পেঁপে চাষে উদ্বুদ্ধ হচ্ছেন।

এ বিষয়ে কিশোরগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. সাইফুল আলম বলেন, একটি লাভজনক কৃষিপণ্য হওয়ায় বর্তমানে অনেকে পেঁপে চাষের দিকে ঝুঁকছেন। এসব চাষিদের প্রযুক্তিগত সহযোগিতার পাশাপাশি এ কৃষিপণ্য বিদেশে রপ্তানি করার ক্ষেত্রেও সকল সহযোগিতা দেয়া হবে বলে জানান তিনি।

পেঁপে একটি লাভজনক কৃষি পণ্য। তাছাড়া মানুষ এখন অনেক স্বাস্থ্য সচেতন, তাই দিন দিন কাঁচা ও পাকা পেঁপের চাহিদা ব্যাপক আকারে বৃদ্ধি পাচ্ছে।