প্রতিবেশীকে ফাঁসাতে স্ত্রী হত্যা, স্বামী-ছেলে কারাগারে

জয়পুরহাটের কালাইয়ে প্রতিবেশীকে ফাঁসাতে মহিলাকে হত্যার ঘটনায় স্বামী-ছেলেকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। রোববার (২৯ মে) রাত ১১টার দিকে জয়পুরহাট চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক আতিকুর রহমান তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এর আগে শনিবার (২৮ মে) সকালে জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার দুধাইল (নয়াপাড়া) গ্রামে মোছা. শিপন (৪০) নামে এক গৃহবধূর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী-সন্তানকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কালাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম মঈনুদ্দিন।

নিহত ওই গৃহবধূ দুধাইল (নয়াপাড়া) গ্রামের তোজাম উদ্দিনের স্ত্রী। তিনি চার সন্তানের মা ছিলেন। গ্রেপ্তাররা হলেন- শিপনের স্বামী তোজাম উদ্দিন (৫০) ও ছেলে শিহাব উদ্দিন (২০)।

এর আগে শনিবার সকালে ঘটনাস্থলে পুলিশ, সিআইডি ও ডিবি পুলিশ পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করেন। এ ঘটনায় গৃহবধূর স্বামী তোজাম উদ্দিন, ছেলে শিহাব ও প্রতিবেশীসহ পাঁচজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় নেওয়া হয়। পরে স্বামী-ছেলে হত্যার দায় স্বীকার করলে প্রতিবেশী তিনজনকে থানা থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

কালাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম মঈনুদ্দিন বলেন, প্রতিবেশী আইনুলের সঙ্গে আসামিদের জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছিল। প্রতিবেশীদের ফাঁসিয়ে জমি রেজিস্ট্রি করানোর জন্য স্বামী নিজেই তার স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা করে। তার বড় ছেলে আলামত নষ্ট করার চেষ্টা করে। এ ঘটনায় পাঁচজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে স্বামী ও সন্তান হত্যার বিষয়টি স্বীকার করলে অন্যদের ছেড়ে দেওয়া হয়।