৩১ অক্টোবর থেকে সিলেটে পণ্যবাহী পরিবহন ধর্মঘট

সিলেটের জাফলং, বিছানাকান্দি ও ভোলাগঞ্জে পাথর উত্তোলনে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে আসছেন পণ্যবাহী পরিবহন মালিক ও শ্রমিক নেতারা। ৩০ অক্টোবরের মধ্যে দাবি না মানলে ধর্মঘটের ঘোষণা দিয়েছে ট্রাক, পিকআপ কাভার্ডভ্যান মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। ৩১ অক্টোবর থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট পালন করবে তারা।

পণ্যবাহী পরিবহন মালিক-শ্রমিক নেতাদের দাবি, সিলেটের ভোলাগঞ্জ, বিছনাকান্দি, জাফলং এবং লোভাছড়া পাথর কোয়ারিগুলো থেকে স্বাধীনতার পরবর্তী সময় থেকেই পাথর সরবরাহ করা হচ্ছে। এ প্রক্রিয়ার সঙ্গে প্রায় ১৫ লাখ ব্যবসায়ী-ট্রাক, পিকআপ-কাভার্ডভ্যান মালিক-শ্রমিক প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত। কিন্তু দীর্ঘ প্রায় পাঁচ বছর ধরে কোয়ারি বন্ধ থাকায় সিলেটের পণ্য পরিবহন খাত বিশেষ করে ট্রাক মালিক ও শ্রমিকদের ব্যবসায় মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

তারা আরও জানান, অধিকাংশ ট্রাক মালিক ব্যাংক ঋণ নিয়ে অথবা কোম্পানিগুলোর কাছ থেকে কিস্তিতে মূল্য পরিশোধের শর্তে তাদের গাড়ি কিনেছেন। পাঁচ বছর ধরে কোয়ারি বন্ধ থাকার কারণে ট্রাক মালিকদের পণ্য পরিবহণে ভাটা পড়েছে।

ট্রাক মালিক সমিতির নেতা ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক গোলাম হাদী ছয়ফুল বলেন, ৩০ অক্টোবরের মধ্যে সিলেটের পাথরকোয়ারি খুলে দেওয়া না হলে ৩১ অক্টোবর থেকে সিলেট জেলায় ৪৮ ঘণ্টা এবং পর্যায়ক্রমে সিলেট বিভাগে সব প্রকার পণ্য পরিবহণ বন্ধ রেখে কর্মবিরতি (ধর্মঘট) পালন করা হবে।