বন্ধুকে জাবাই করে বাবাকে লাশ বের করতে বলল ছেলে

১৮

সাতক্ষীরা শহরের কাশেমপুর মালীপাড়ায় বন্ধুর হাতে এক কিশোর খুন হয়েছে। শনিবার (১০ এপ্রিল) বেলা একটার দিকে ঘরের মধ্যে ওই কিশোরকে জবাই করে হত্যা করা হয়। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে এখনো হত্যাকারীকে আটক করা যায়নি।

নিহত কিশোর সালাউদ্দীন আহমেদ (১৬) শহরের কাশেমপুর গ্রামের শাহজাহান আলী বাবুর ছেলে। আত্মস্বীকৃত হত্যাকারী সাগর হোসেন একই এলাকার শহিদুল ইসলামের ছেলে।

স্থানীয় বাসিন্দা হাসানুজ্জামান শাওন জানান, সালাউদ্দীন ও তার বন্ধু মিলে সালাউদ্দীনের ঘরে বসে নেশা করছিল। এসময় কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে সালাউদ্দীনকে কুপিয়ে সে পালিয়ে যায়।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বোরহান উদ্দিন জানান, বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে বন্ধু সাগর হোসেন অপর বন্ধু সালাউদ্দিন আহমেদের ঘরে ঢোকে। এক পর্যায়ে তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জবাই করে পালিয়ে যায়। এরপর বাড়িতে গিয়ে সাগর হোসেন তার বাবা শহিদুল ইসলামকে জানিয়েছে, সালাউদ্দীনকে আমি মেরে ফেলেছি লাশটি ঘর থেকে বের করে আনো।

তিনি জানান, মুহূর্তেই এ খবরটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনাটি জানার পরই পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে রয়েছি। কি কারনে এই হত্যাকান্ড ঘটেছে সেটি এখনো জানা যায়নি। মরদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থলে জিজ্ঞাসাবাদ ও তদন্ত কার্যক্রম চলছে। এখনো হত্যাকারীকে আটক করা যায়নি। বিস্তারিত পরে জানা যাবে।