বর্জ্যে সয়লাব ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভা

৩৩

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভায় প্রতিদিন কম করে হলেও ১শ টন বর্জ্য উৎপাদন হয়। অথচ এসব বর্জ্য পরিশোধনে নেই কোন ব্যবস্থা। তাই যত্রতত্র খোলা আকাশের নিচে, সড়ক-মহাসড়কের পাশে ফেলে রাখা হয় বর্জ্য। এতে পথচারীদের চলাচল ব্যাহত হওয়ার পাশাপাশি উৎকট গন্ধে বিষিয়ে উঠছে গোটা এলাকা। তাই, দ্রুত এ সমস্যা সমাধানের দাবি জানিয়েছেন ভূক্তভোগীরা।

দেশের প্রাচীনতম পৌরসভা ব্রাক্ষণবাড়িয়া। ১৮৬৮ সালে প্রতিষ্ঠিত এই পৌরসভা প্রথম শ্রেণির মর্যাদায় অধিষ্ঠিত হলেও নাগরিকরা রয়েছে পর্যাপ্ত সুবিধা থেকে বঞ্চিত। জীবিকার তাগিদে এই পৌরসভায় প্রতিদিনই বাড়ছে জনসংখ্যার চাপ। বর্তমানে এর জনসংখ্যা আড়াই লাখ।

প্রতিদিন পৌর এলাকায় ১শ টনের মতো বর্জ্য উৎপন্ন হচ্ছে। যা পরিশোধনে পৌরসভায় নেই তেমন কোনো ব্যবস্থা। ফলে, কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের পাশে শহরের পৈরতলায় ও গোকর্ণ রোডের পাশে এসব বর্জ্য খোলা আকাশের নীচে ফেলে রাখা হয়। এতে একদিকে যেমন দূষিত হচ্ছে পরিবেশ তেমনি বর্জ্যরে উৎকট দুর্গন্ধে চলাচলও কঠিন হয়ে পড়েছে। এ সমস্যা সমাধানে দ্রুত পদক্ষেপ চায় শহরবাসী।

এ বিষয়ে কথা বললে অচিরেই বর্জ্য পরিশোধন করে জৈব সারে রূপান্তরের কথা জানান মেয়র।

এদিকে, জনসাধারণের সচেতনতার বৃদ্ধির পাশাপাশি ডাম্পিং স্টেশন করার আশ্বাস দিলেন জেলা প্রশাসক।

দ্রুত যথাযথ ব্যবস্থা নিয়ে নাগরিকদের কষ্ট লাঘবে সচেষ্ট হবে পৌর কর্তৃপক্ষ, এমনটাই আশা শহরবাসীর।

You might also like