বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে তথ্য চুরি

৮১

১০ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরির রেশ না কাটতে আবারও বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে তথ্য চুরির ঘটনা ঘটেছে। এবার ভুয়া আবেদনে সাড়া দিয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা প্রয়োজনীয় তথ্য তুলে দিয়েছেন প্রতারক চক্রের হাতে।

জানা গেছে, গত সেপ্টে¤॥^র মাসে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পরিচালক (ইউএন বা জাতিসংঘ অনুবিভাগ) পরিচয় দিয়ে জনৈক নাসির আহমেদ দেশের সব তফসিলি ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকের (এমডি) তালিকা চেয়ে বাংলাদেশ ব্যাংককে চিঠি পাঠায়। ওই চিঠি পাওয়ার পর কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা নাসির আহমেদকে তফসিলি ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকের তালিকা দিয়ে দেন।

বিষয়টি ধরা পড়তেই দ্রুত ব্যবস্থা নিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবিরের কাছে একটি চিঠি পাঠিয়েছেন পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক। গত ৯ অক্টোবর পররাষ্ট্র সচিবের পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য চুরির বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে গভর্নরকে অনুরোধ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।

বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে নাসির আহমেদকে তালিকা দেওয়ার পর গত ১৭ সেপ্টে¤॥^র বিষয়টি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে জানানো হয়। এরপরই এই জালিয়াতির ঘটনা ধরা পড়ে। কারণ, নাসির আহমেদ নামে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে কোনও পরিচালকই নেই।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্কে (ফেড) রক্ষিত বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব থেকে ১০ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরি হয়। এই অর্থের মধ্যে শ্রীলঙ্কায় যাওয়া ২ কোটি ডলার ফেরত আসে। তবে ফিলিপাইনে যাওয়া ৮ কোটি ১০ লাখ মধ্যে দেড় কোটি ডলার ফেরত এলেও বাকি অর্থ উদ্ধারে এখনও তেমন কোনও অগ্রগতি নেই।

নিউজ ডেস্ক / বিজয় টিভি

You might also like