বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসে হামলার পর ইরানের প্রতি হুমকি ট্রাম্পের

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানকে বড় ধরণের মূল্য দিতে হবে বলে হুঁশিয়ার করেছেন। ইরাকের রাজধানী বাগদাদের মার্কিন দূতাবাসে ইরানপন্থী বিক্ষোভকারীদের হামলার পর তিনি এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

একই সঙ্গে মার্কিন সরকার মধ্যপ্রাচ্যে আরো সৈন্য পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছে।

রোববার ইরাকে মার্কিন বিমান হামলায় বেশ কিছু সংখ্যক আধা সামরিক বাহিনীর সদস্য নিহত হওয়ায় ক্ষুব্ধ বিক্ষোভকারীরা বাগদাদে আমেরিকান দূতাবাসে হামলা চালায়। তারা ইরাক থেকে মার্কিন সৈন্যের অপসারন দাবি এবং একইসঙ্গে রিভ্যুলিশনারি গার্ডের শক্তিধর ইরানী জেনারেল কাশেম সোলাইমানির প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করে।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেন, সন্ত্রাসীরা এ হামলা চালিয়েছে। তিনি হামলাকারী একজনের নাম আবু মাহদি আল মুহানদিস বলে উল্লেখ করেন।

মুহানদিস তেহরান সমর্থিত আধা সামরিক গ্রুপ হাসেদ আল শাবি’র দ্বিতীয় প্রধান। মার্কিন বিমান হামলার লক্ষ্যবস্তু কাতিব হিজবুল্লাহ হাসেদ আল শাবি’র অন্তর্ভুক্ত গ্রুপ।

এদিকে, মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপার বলেছেন, ওই অঞ্চলে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে ৮২তম এয়ারবোর্ন ডিভিশনের র‌্যাপিড রেসপন্স ইউনিট থেকে ৭৫০ জন সৈন্যকে মোতায়েন করা হচ্ছে।

এ ঘোষণার আগে একজন মার্কিন কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানিয়েছেন, ওই অঞ্চলে চার হাজার পর্যন্ত সৈন্য মোতায়েন করা হতে পারে।

দূতাবাসে হামলার জন্যে ট্রাম্প ইরানকে দায়ী করে বলেছেন, আমেরিকান নিহত হলে এ জন্যে তেহরানকে শাস্তি পেতে হবে।

টুইটার বার্তায় তিনি বলেন, ক্ষয়ক্ষতির পুরো দায় ইরানের। এর জন্যে তাদেরকে বড়ো ধরণের মূল্য দিতে হবে। এটি সতর্কতা নয়, এটি হুমকি।

তবে, এর পর সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ইরানের সাথে যুদ্ধের কোন সম্ভাবনা তিনি দেখছেন না। সুত্র:বাসস

অনলাইন নিউজ ডেস্ক/বিজয় টিভি

You might also like