বাসে ডাকাতি ও ধর্ষণের ঘটনায় ‘মূলহোতা’ গ্রেফতার

টাঙ্গাইলের মধুপুরে ঈগল পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসে ডাকাতি ও নারী যাত্রীকে ধর্ষণের মামলায় রাজা মিয়া নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা। পুলিশের দাবি সে ডাকাতি ও ধর্ষণের ঘটনার মূলহোতা।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) ভোরে টাঙ্গাইল শহরের নতুন বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতার রাজা মিয়া জেলার কালিহাতী উপজেলার বল্লা গ্রামের হারুন অর রশিদের ছেলে। সে টাঙ্গাইল শহরের নতুন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতো ও ঢাকা-টাঙ্গাইল রুটের ঝটিকা বাসের চালক ছিল।

পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার বলেন, মধুপুরে বাসে ডাকাতি ও ধর্ষণের ঘটনার পর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান শুরু করে পুলিশ। রাতে বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে রাজাকে গ্রেফতার করা হয়। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।

মধুপুর থানার ওসি মোহাম্মদ মাজহারুল আমিন বলেন, ‘বাসটিতে ২৪-২৫ জন যাত্রী ছিল। এর মধ্যে ৬-৭ জন ছিল নারী যাত্রী। বাসে যাত্রী বেশে উঠে সবাইকে জিম্মি করে লুটপাট চালায় ডাকাতরা। এ সময় এক নারীকে সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণ করা হয়। রাত দেড়টা থেকে রাত সাড়ে ৩টা পর্যন্ত বাসটি ডাকাত দলের নিয়ন্ত্রণে ছিল। কুষ্টিয়া থেকে ছেড়ে আসা ঈগল পরিবহনের বাসটি বুধবার (৩ আগস্ট) ভোরে টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ সড়কের মধুপুর উপজেলার রক্তিপাড়া জামে মসজিদের পাশে বালির স্তূপে উল্টিয়ে দিয়ে ডাকাত দল পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় এক যাত্রী বাদী হয়ে মামলা করেছেন।’ ধর্ষণের শিকার ওই নারীকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি।

You might also like