ভিজিটরস সেন্টার উদ্বোধন

শুক্রবার (২ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার দোগাছি এলাকায় ভিজিটরস সেন্টার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

উদ্বোধন কালে মন্ত্রী বলেন, তারা (ঐক্যফ্রন্ট নেতারা) যদি চান, ছোট পরিসরে আবারো আলোচনা হতে পারে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, তারা যদি আবার আসতে চান, আমার দরজা খোলা রয়েছে।

পদ্মাসেতুর মূল অংশের ৭১ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে জানিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, ৯৩০০ বর্গফুটের ভিজিটরস সেন্টারের মাল্টিপারপাস হলের আসন সংখ্যা ১২০। ইনডোর ও আউটডোর ক্যাফের ক্যাপাসিটি ১০০। এছাড়া একটি ভিআইপি কক্ষ ও একটি সভাকক্ষ রয়েছে।

ভিজিটরস সেন্টার সম্পর্কে তিনি বলেন, পৃথিবীর সব বড় বড় প্রকল্পে একটি ভিজিটরস সেন্টার থাকে। কারণ, বড় প্রকল্পে অনেক দর্শনার্থী আসে। এখান থেকে ভিজিটররা অনেক কিছু জানতে পারবে ও নিজেদের সমৃদ্ধ করতে পারবে।

সেতু প্রকল্প সূত্রে জানা গেছে মূল সেতুর ২৬২টি পাইলের মধ্যে ১৮২টি পাইল ড্রাইভিংয়ের কাজ শেষ হয়েছে। মূল সেতুর দুই প্রান্তের দু’টি ট্রান্সিশন পিয়ারের ৩২টি পিয়ারের সবগুলো পাইল শেষ হয়েছে। মূল সেতুর ৪২টি পিয়ারের মধ্যে ১২টি পিয়ারের কাজ শেষ হয়েছে এবং ২১টির কাজ চলছে। মাওয়া সাইটে মোট ১৭টি ট্রাস এসেছে যার মধ্যে পাঁচটি স্থায়ীভাবে ও একটি অস্থায়ীভাবে স্থাপন করা হয়েছে। মাওয়া ও জাজিরা প্রন্তের ৩৫৬টি ভায়াডাক্টের সবগুলো পাইল বসানো হয়েছে। জাজিরা প্রান্তের ভায়াডাক্টের ৪৭টি পিয়ারের ১৮টি শেষ হয়েছে এবং ২৯টির কাজ চলমান। মাওয়া প্রান্তে ভায়াডাক্টের ৪১টি পিয়ারের মধ্যে ছয়টি শেষ হয়েছে এবং ৩৫টির কাজ চলছে। নদী শাসনের মোট ৪৬ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। মোট ১৩ কিলোমিটারের মধ্যে তিন কিলোমিটারের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। অন্যদিকে, সংযোগ সড়কের কাজ সব শেষ হয়েছে।

নিউজ ডেস্ক / বিজয় টিভি

You might also like