মশক নিধনে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে : মেয়র তাপস

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন, নগরবাসীকে গতবছরের মতো যেন মশার অত্যচার সহ্য করতে না হয়, সে লক্ষ্যে মশক নিধনে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন, নগরবাসীকে গতবছরের মতো যেন মশার অত্যচার সহ্য করতে না হয়, সে লক্ষ্যে মশক নিধনে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘সম্মানিত নগরবাসীদের গতবছরের ন্যায় যেন মশার অত্যচার সহ্য করতে না হয় সে লক্ষ্যে আমি মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণ করেই মশক নিধন সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছি।’

আজ (রোববার) মশক নিধনে ডিএসসিসির বছরব্যাপী কার্যক্রমের উদ্বোধনকালে মেয়র  এ কথা বলেন।

নগরীর ২৩ নম্বর ওয়ার্ডসহ লালবাগ নবাবগঞ্জ পার্কে এই মশকমুক্তকরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

এসময় স্থানীয় সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ সেলিম উপস্থিত ছিলেন। বক্তব্য রাখেন মহানগর আওয়ামী লীগ দক্ষিণের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী, সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবীর, কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ্ মো. ইমদাদুল হক। স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মকবুল হোসেনসহ পার্শ্ববর্তী ওয়ার্ডের কাউন্সিলরগণ ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

মেয়র শেখ তাপস বলেন, ‘পূর্বের মশক নিধনের লক্ষ্যে গতানুগতিক কার্যক্রম উপর থেকে নীচ পর্যন্ত ঢেলে সাজানো হয়েছে। নতুনভাবে গৃহীত এ কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন আজ থেকে শুরু হলো। এটি কর্পোরেশনের ৭৫টি ওয়ার্ডে একযোগে চলবে।’

প্রতি ওয়ার্ডে ৮ জন মশককর্মী সকাল ৯টা হতে শুরু করে দুপুর ১টা পর্যন্ত লার্ভিসাইডিং করবে। অন্যদিকে ওয়ার্ড প্রতি ১০ জন মশক ক্রু দুপুর আড়াইটা থেকে শুরু করে বিকেল সাড়ে ৬ টা পর্যন্ত ফগিং কার্যক্রম চালাবে। ওয়ার্ড কাউন্সিলররা সরাসরি এসব কাজের সাথে সম্পৃক্ত থাকবেন।

এ কার্যক্রম যথাযথভাবে চললে আশা করছি আগামী বছর থেকে মশার প্রজনন ব্যাপকভাবে হ্রাস পাবে।

মেয়র বলেন, ‘নগরবাসী ডেঙ্গু/চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্ত হোক তা আমরা চাইনা। এ কারণেই করোনার এ মহামারীর মধ্যেও মশক নিধন কার্যক্রম বেগবান করা হয়েছে এবং ২৪ ঘন্টা একাজ চলবে।’ (সুত্র: বাসস)

You might also like