মালয়েশিয়ায় ভিসা জালিয়াতির দায়ে ১ পাকিস্তানি বাংলাদেশী পাসপোর্ট সহ আটক

১৩৫

মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট হ্যাক করে ওয়ার্ক পারমিট(পিএলকেএস) ভিসা জালিয়াতির ঘটনায় বাংলাদেশী পাসপোর্ট সহ বিভিন্ন দেশের মোট ৮১ টি পাসপোর্ট সহ এক পাকিস্তানের নাগরিক কে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। ৩৯ বছর বয়সী ঐ পাকিস্তানি যুবক ইমিগ্রেশনের সিস্টেম হ্যাক করে ভিসা জালিয়াতি চক্রের মূল হোতা বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২২এপ্রিল) বিকেলে দেশটির ইমিগ্রেশন বিভাগের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি তে এসব তথ্য জানান উক্ত বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক খায়রুল দাযামি দাউদ।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়,এর আগেও ভিসা জালিয়াতি চক্রের বেশ কয়েকজন কে আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে সাবেক ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা সহ বিভিন্ন শ্রেনী ও বিভিন্ন দেশের নাগরিক সহ মালয়েশিয়ান প্রতারক ও জড়িত রয়েছে। গতকাল বুধবার রাজধানী কুয়ালালামপুরের জালান ইপুহ এর পৃথক এলাকা থেকে তাকে পাসপোর্ট ও ১৫ হাজার ৯৫০ মালয় রিংগিত সহ আটক করা হয়েছে। এসময় এই পাকিস্তানী কে সহযোগিতার দায়ে দুই জন মালয়েশিয়ান নারী পুরুষ কেও আটক করা হয়েছে। এই অপারেশনে ইমিগ্রেশন পুলিশ, গোয়েন্দা পুলিশ ও স্পেশাল ব্রাঞ্চের অফিসারগন অংশগ্রহণ করেছিলেন। উদ্ধারকৃত ৮১ টি পাসপোর্ট বাংলাদেশ, ভিয়েতনাম ও পাকিস্তানের নাগরিকদের।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, ইমিগ্রেশন এ্যাপস্ হ্যাক করে ভূয়া ওয়ার্ক পারমিট (পিএলকেএস) ভিসা রিনিউ করার জন্য এবং বর্তমানে অবৈধদের বৈধকরণ প্রোগ্রাম রিক্যালিব্রেশন এ রেজিষ্ট্রেশন করার জন্য উক্ত পাসপোর্ট গুলো চক্রটি সংগ্রহ করেছে। এর জন্য প্রত্যেক পাসপোটধারীদের কাছে ভূল তথ্য দিয়ে ২ হাজার এবং ৩ হাজার করে মালয় রিংগিত জমা নিয়েছে। এভাবে মোটা আদায়কৃত অর্থের পরিমান প্রায় ২ লাখ ৪৩ হাজার রিংগিত। আরো অধিকতর তদন্ত এবং চক্রের অপর সদস্যদের ধরতে উদ্ধারকৃত রিংগিত ও পাসপোর্ট সহ ঐ পাকিস্তানি প্রতারক কে পুত্রাজায়া ইমিগ্রেশন হেডকোয়ার্টারে নেওয়া হয়েছে।