মালয়েশিয়া লকডাউনে প্রবাসীদের কর্মস্থলে যেতে লাগবে না পুলিশের অনুমতি

৩৬

মালয়েশিয়ায় ভারতীয় করোনা ভেরিয়্যান্ট সনাক্তের পর গত ৭ মে থেকে ২০ মে পর্যন্ত মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার এমসিও ৩.০ লকডাউন ঘোষণা করেছে দেশটির সরকার। শিল্প কারখানা ও অফিস খোলা থাকলেও প্রবাসীরা তাদের নিজ কর্মস্থলে যাতায়াতে পুলিশের অনুমতি পত্রের দরকার হতো। এতে অনেকেই কর্মস্থলে যেতে বিপাকে পড়েন। নতুন ঘোষণায় আগামীকাল ১০ মে সোমবার থেকে প্রবাসীরা নিজ কর্মস্থলে যাতায়াতে পুলিশের আর কোন অনুমতিপত্রের প্রয়োজন নেই বলে জানিয়েছেন দেশটির আন্তর্জাতিক বানিজ্য ও শিল্প মন্ত্রনালয় (এমআইটিআই)

রবিবার (৯ মে) সকালে দেশটির জাতীয় সংবাদ মাধ্যম মালায় মেইল এ প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়ছে। প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, বৈধ ওয়ার্ক পারমিটধারী প্রবাসীরা তাদের নিজ নিজ কোম্পানির কর্মস্থলে যেতে তাদের মালিকের সূরত(ডকুমেন্টস) বা ভিসা ই যথেষ্ট এক্ষেত্রে পুলিশের অনুমতি পত্র থাকা বাধ্যতামূলক নয়। প্রবাসী কর্মীরা পুলিশের অনুমতি পত্র ছাড়াই লকডাউন ঘোষিত এলাকার ভেতরে এবং কাজের প্রয়োজনে এক জেলা থেকে অন্য জেলায় যেতে পারবেন। এই আপডেট ঘোষণা জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিল ও সংশ্লিষ্ট সকল কে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

গতকাল শনিবার সিনিয়র মন্ত্রী দাতুক সেরি ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব এক ঘোষণায় বলেছিলেন লকডাউন ঘোষিত এলাকায় এবং এক জেলা থেকে অন্য জেলায় ভ্রমন করতে পুলিশের অনুমতি পত্র লাগবে। এ ঘোষণার একদিন পরই দেশটির আন্তর্জাতিক বানিজ্য ও শিল্প মন্ত্রনালয় এ ঘোষণা দিল। এতে করে প্রবাসীদের মধ্যে স্বস্তি ফিরেছে। কারণ সব প্রবাসীরা পুলিশের অনুমতি পত্র সংগ্রহ করে কর্মস্থলে যেতে পারছিলেন না।

মালয়েশিয়া ৩য় ঢেউ মোকাবিলায় ৩য় দফা লকডাউন ঘোষণা করেছে। তবে চলমান লকডাউন চলমান থাকলেও অর্থীনিতি মন্দার আশঙ্কায় প্রাইভেট সেক্টর সহ অর্থনৈতিক খাতগুলো খোলা রাখা হয়েছে। দেশটিতে নাগরিক ও প্রবাসী মিলিয়ে সাড়ে ৩ কোটির জনগনের মধ্যে গতকাল ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত ৪ হাজার ৫ শত ১৯ জন, গত ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২৫ জন। জনসংখ্যা অনুপাতে ভারত ও বাংলাদেশের চেয়ে বেশি।