মেক্সিকো সীমান্তে ‘নিরস্ত্র’ থাকবেন মার্কিন সেনারা

১৩৬

নভেম্বরের শুরুতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প দক্ষিণাঞ্চলীয় সীমান্ত দিয়ে প্রবেশকারী অবৈধ অভিবাসীদের আশ্রয় প্রদানকে নিষিদ্ধ করে নতুন আদেশে স্বাক্ষর করেন।

নতুন নিয়মের আওতায়, মেক্সিকো সীমান্ত দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ক্ষেত্রে যারা প্রেসিডেন্টের বিধি-নিষেধ লঙ্ঘন করবে তাদেরকে প্রবেশে বাধা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

মার্কিন প্রশাসনের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘জাতীয় স্বার্থে’ অভিবাসন ঠেকানোর এখতিয়ার প্রেসিডেন্টের রয়েছে।

মেক্সিকো সীমান্তবর্তী শহর তিজুয়ানায় প্রায় ৩ হাজার অভিবাসী জড়ো হয়েছে। তারা সবাই হন্ডুরাস, গুয়াতেমালা ও এলসালভেদরে সহিংসতা ও নিপীড়নের শিকার হয়ে সেখানে যান। তবে ট্রাম্প তাদের ঠেকাতে ৫ হাজার ৮০০ সেনা মোতায়েন করে।

বুধবার ম্যাটিস বলেন, সেনা সদস্যরা সীমান্তে সম্ভাব্য হুমকি মোকাবিলা করবেন। তবে সেনাদেরকে কঠোর ব্যবস্থা নিতে বলা হয়নি। তাদের বলা হয়, ‘স্বাভাবিক থাকো। চিন্তার কিছু নেই।’ লাঠি ও ঢাল নিয়ে থাকা পুলিশরা কিছুক্ষণের জন্যও অভিবাসীদের আটক রাখতে পারবেন কিন্তু সেটা এক ঘণ্টাও নয়। গ্রেফতারের এখতিয়ারও তাদের নেই।

ম্যাটিস আরও বলেন, যদি সীমান্তে কেউ টহলরতদের ওপর হামলা করে ও আমাদের কিছু করার সুযোগ থাকে, তবেই আমরা তাকে আটক করে সীমাস্ত পুলিশের কাছে প্রত্যর্পণ করতে পারি। তাদের গ্রেফতারের এখতিয়ার রয়েছে।

নিউজ ডেস্ক / বিজয় টিভি

You might also like