রংপুরে বাসের ধাক্কায় অটোরিকশার ৩ যাত্রী নিহত

রংপুরের তারাগঞ্জে যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় অটোরিকশার তিন যাত্রী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও চার যাত্রী। তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার যমুনেশ্বরী নদীর বারাতি ব্রিজের কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

তারাগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব মোর্শেদ জানান, বেলা ১১টার দিকে যমুনেশ্বরী নদীর ব্রিজের ওপর যাত্রীবাহী শ্যামলী পরিবহন পেছন থেকে ব্যাটারিচালিত একটি অটোরিকশাকে ধাক্কা দেয়। এতে দুমড়ে মুচড়ে যাওয়া অটোরিকশার যাত্রীদের গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় প্রথমে সুরাইয়া আক্তার (১৩) এবং ঘণ্টা দুয়েক পর স্মৃতি আক্তার (২০) ও অটোরিকশা চালক জাহাঙ্গীর আলম (৪৪) মারা যান।

নিহত সুরাইয়া আক্তার উপজেলার ইকরচালি সরকারপাড়া গ্রামের ভুট্টু মিয়ার মেয়ে। সুরাইয়া জগদীশপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। একই উপজেলার দোলাপাড়ায় স্মৃতি আক্তার এবং জগদীশপুর উত্তরপাড়ায় জাহাঙ্গীর আলমের বাড়ি। এ ঘটনায় আরও তিনজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানা গেছে।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার ইকরচালি থেকে একটি অটোরিকশা ৬-৭ যাত্রী নিয়ে তারাগঞ্জ বাজারের দিকে যাচ্ছিল। এ সময় চট্টগ্রাম থেকে নীলফামারীর সৈয়দপুরগামী শ্যামলী পরিবহনের একটি বাস অটোরিকশাটিকে পেছন থেকে ধাক্কা দিলে যাত্রীরা আহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আহতদের উদ্ধার করে তারাগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। আহতদের অবস্থার অবনতি ঘটলে তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

তারাগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ওসি মাহবুব মোর্শেদ জানান, ঘাতক বাসটি আটক করা হলেও ড্রাইভার ও হেলপারকে আটক করা সম্ভব হয়নি। ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে তারা সটকে পড়েন।

You might also like