রবিবার সংসদে উঠছে নির্বাচন কমিশন নিয়োগ আইন

নির্বাচন কমিশন নিয়োগ বিল জাতীয় সংসদের অধিবেশনে উঠছে রবিবার (২৩ জানুয়ারি)। ওই দিন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এটি তুলে ধরবেন। একইসঙ্গে সেটি পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানোর প্রস্তাব করবেন তিনি। শনিবার (২২ জানুয়ারি) সংসদ সচিবালয় সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

ইতোমধ্যে ‘প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ বিল-২০২২’ জনমনে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। অবশেষে তা চলতি সপ্তাহে সংসদের প্রথম কার্যদিবসেই উঠছে। সংবিধানের ১১৮ (১) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) এবং অন্যান্য কমিশনার নিয়োগে বিলটি আনা হচ্ছে।

সংসদ সচিবালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, প্রতিবেদন দেয়ার জন্য সংসদীয় কমিটিকে খুব কম সময় দেয়া হচ্ছে। চটজলদি তাদের তা দিতে হবে। কারণ, বিলটি দ্রুত পাস করা হবে। পরে নতুন এই আইনের আলোকে সিইসি এবং অন্যান্য কমিশনারদের নিয়োগ দেয়া হবে। গত সোমবার খসড়া আইনটি মন্ত্রিসভায় অনুমোদন দেয়া হয়।

কে এম নূরুল হুদা নেতৃত্বাধীন বর্তমান ইসির মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি। এর আগেই নতুন কমিশন গঠন করতে হবে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদকে। সিইসি এবং অন্যান্য কমিশনারদের নিয়োগের দায়িত্ব বর্তেছে তার ওপর। এর মানে আইনটি সংসদে তোলা থেকে পাস করে গেজেট প্রকাশে সময় থাকছে চার সপ্তাহ।

বাংলাদেশের সংবিধানে বলা আছে, সাংবিধানিক সংস্থা ইসিতে কমিশনার নিয়োগের এখতিয়ার রাষ্ট্রপতির। আর তা একটি আইনের অধীনে হবে।

%d bloggers like this: