রাশিয়ার নতুন হামলার জন্য প্রস্তুত ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী: জেলেনস্কি

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, দেশের পূর্বাঞ্চলে রাশিয়ার নতুন হামলার বিরুদ্ধে প্রস্তুত রয়েছে তাদের সামরিক বাহিনী।

বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে তিনি এ কথা জানান। খবর বিবিসির।

তিনি বলেন, ডনবাসে নতুন করে হামলার পরিকল্পনা করছে রুশ বাহিনী। আমরাও প্রস্তুত রয়েছি। রাজধানী কিয়েভ এবং অপর প্রধান শহর চেরনিহিভের চারপাশে সামরিক অভিযান কমানোর আলোচনায় রাশিয়ার বিবৃতিতে সংশয় প্রকাশ করেছেন তিনি।

তিনি বলেন, আমরা কাউকে বিশ্বাস করি না, কারও সুন্দর সুন্দর কথায় বিশ্বাস করি না। তিনি বলেন, এসব শহরের আশেপাশে সামরিক অভিযান কমানোর বিষয়ে রাশিয়া যে ঘোষণা দিয়েছে তা বিশ্বাস করার কোনো কারণ নেই।

এদিকে ইউক্রেনের বন্দর নগরী মারিউপোল থেকে লোকজনকে সরিয়ে নিতে সেখানে যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। এক বিবৃতিতে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার রুশ নিয়ন্ত্রিত বেরদিয়ানৎস্ক বন্দর হয়ে মারিউপোল থেকে জাপোরিঝিয়া পর্যন্ত মানবিক করিডোর চালু করা হয়েছে।

ওই বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, এই মানবিক অভিযান সফল করতে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনার এবং রেড ক্রসের আন্তর্জাতিক কমিটির সরাসরি অংশগ্রহণে এটি চালানোর প্রস্তাব দেওয়া হচ্ছে।

তবে এই যুদ্ধবিরতি সম্পর্কে ইউক্রেনের পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য করা হয়নি। এর আগেও ওই শহরে যুদ্ধবিরতির চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু দুপক্ষের অবিশ্বাস এবং একে অপরের প্রতি অনাস্থার কারণে তা ভেস্তে গেছে।

অপরদিকে হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র কেট বেডিংফিল্ড বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের কাছে তথ্য আছে যে নিজ দেশের সামরিক বাহিনীর মাধ্যমে বিভ্রান্ত হচ্ছেন বলে মনে করছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এর ফলে পুতিন এবং তার সামরিক বাহিনীর নেতৃত্বে থাকা লোকজনের মধ্যে ক্রমাগত উত্তেজনা দেখা দিয়েছে বলেও দাবি করেন কেট। খবর বিবিসির।

এক বিবৃতিতে কেট বেডিংফিল্ড দাবি করেন যে, ইউক্রেনে হামলা চালানোর বিষয়টি ছিল পুতিনের জন্য একটি কৌশলগত ভুল যা রাশিয়াকে দীর্ঘমেয়াদে দুর্বল করে ফেলেছে এবং বিশ্ব মঞ্চে তারা ক্রমাগত বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে।