সরিষাবাড়ীতে বাড়ছে চোখ ওঠা রোগের প্রকোপ

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে হঠাৎ বেড়েছে চোখ ওঠা রোগীর সংখ্যা। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বহির্বিভাগে প্রতিদিন গড়ে ১শ’ রোগী আসছেন এ রোগের চিকিৎসা নিতে। তবে রোগটি ছোঁয়াচে হলেও এ নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়ার কথা বলছেন চক্ষু বিশেষজ্ঞরা।

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে হঠাৎ করেই বেড়েছে চোখ ওঠা রোগের প্রাদুর্ভাব। উপজেলার প্রায় প্রতিটি গ্রামেই ছড়িয়ে পড়েছে এই রোগ।

উপজেলার বড়শরা গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, একই পরিবারের প্রায় সবার হয়েছে এই চোখ ওঠা রোগ। ভুক্তভোগী মজনু মিয়া জানান, কাজের সন্ধানে ঢাকা যাওয়ার পরই এ রোগে আক্রান্ত হন তিনি। গত বৃহস্পতিবার বাড়িতে ফিরলে তার পরিবারের সদস্যদের মাঝে ছড়িয়ে পড়ে এই রোগ। এমনই অবস্থা গ্রামের অন্যদেরও।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বদরুল হাসান বলেন, এটি একটি ভাইরাসজনিত ছোঁয়াচে রোগ। সরিষাবাড়ীতে বর্তমানে প্রতি ১শ’ জনে ৫ জন এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। তবে, কিছু সাবধানতা অবলম্বন করলে এক সপ্তাহের মধ্যেই এই রোগ ভালো হয়ে যায়।

চক্ষু বিশেষজ্ঞরা জানান, গরমে আর বর্ষায় চোখ ওঠার প্রকোপ বাড়ে, চিকিৎসা বিজ্ঞানে এটিকে কনজাংটিভাইটিস বা কনজাংটিভার বলা হয়। এ রোগ হলে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্কতা অবলম্বন করার পরামর্শ তাদের।

You might also like