সাকিব আল হাসান ও তাইজুল ইসলামের সামনে এলোমেলো ক্যারিবিয়ানরা

১২৭

চট্টগ্রাম টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ২০৪ রানের লক্ষ্য বেঁধে দিয়েছে বাংলাদেশ। তৃতীয় দিন সকালের সেশনে দ্বিতীয় ইনিংসে ১২৫ রানে গুটিয়ে যায় স্বাগতিক বাংলাদেশ। সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজকে জিততে হলে করতে হবে ২০৪ রান। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের দেয়া ৩২৪ রানের বিপরীতে দ্বিতীয় দিনের শেষ সেশনে ব্যাট করতে নেমে ২৪৬ রানে থেমে যায় সফরকারীদের ইনিংস। দ্বিতীয় ইনিংসে ৭৮ রানে এগিয়ে থেকে ব্যাটিংয়ে নেমে দ্বিতীয় দিন শেষে পাঁচ উইকেটে ৫৫ রান তোলে স্বাগতিকরা। তৃতীয় দিন সকালে সবকটি উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ তোলে ১২৫ রান।

ক্যারিবীয়ানদের হয়ে ইনিংস শুরু করেন ক্রেইগ ব্রাথওয়েইট এবং কিয়েরন পাওয়েল। ইনিংসের তৃতীয় ওভারে সাকিবের ঘূর্ণিতে স্ট্যাম্পিং হন পাওয়েল। দলীয় ৫ রানের মাথায় উইন্ডিজ প্রথম উইকেট হারায়। দলীয় ১১ রানের মাথায় সাকিব ফিরিয়ে দেন শাই হোপকে। আর এই উইকেট নেওয়ার মধ্যদিয়ে সাকিব তুলে নেন নিজের ২০০তম টেস্ট উইকেট।

সাকিবের পর তাইজুলের জোড়া আঘাত। আবারও সাকিবের আঘাত। তার উইকেট উৎসবের সঙ্গে তাইজুল ইসলাম যোগ দিলে এলোমেলো ওয়েস্ট ইন্ডিজের টপ অর্ডার। দলীয় ১১ রানে দ্বিতীয় উইকেট হারানো ক্যারিবিয়ানরা একই স্কোরে হারায় আরও ২ উইকেট।

শাই হোপ আউট হন দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে। সাকিবের দ্বিতীয় শিকার হয়ে মাত্র ৩ রান করে উইকেটরক্ষক মুশফিকের গ্ল্যাভসে ধরা পড়েন তিনি।

অধিনায়কের গড়ে দেওয়া মঞ্চে তাইজুল হয়ে ওঠেন আরও ভয়ঙ্কর। তৃতীয় দিনের লাঞ্চের আগে করেছেন মাত্র ৫ বল, কোনও রান না দিয়ে পেয়েছেন ২ উইকেট। ওপেনার ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটকে (৮) ফিরিয়ে শুরু করেন উইকেট উদযাপন। ৩ বল বিরতি দিয়ে এই স্পিনার তুলে নেন রোস্টন চেসের (০) উইকেট।

বড় লক্ষ্য দেওয়া যায়নি ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। তাই বোলিংয়ে দারুণ শুরুর অপেক্ষায় ছিল বাংলাদেশ। শুরুতেই বল হাতে নেওয়া সাকিব আল হাসান এনে দিলেন সেটা। তার বলে আউট হয়েছেন কিয়েরন পাওয়েল।

দ্বিতীয় ইনিংসে ১২৫ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। তৃতীয় দিনে দেড় ঘণ্টায় শেষ পাঁচ ব্যাটসম্যানকে হারিয়েছে স্বাগতিকরা। তাতে চট্টগ্রাম টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ২০৪ রানের লক্ষ্য দিয়েছে টাইগাররা।

প্রথম ইনিংসে ৩২৪ রান করা বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংসের শুরু থেকেই ছিল চাপে। দ্বিতীয় দিনের ৫ উইকেটে ৫৫ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করে অলআউট হয়েছে ১২৫ রানে। ব্যাটিং ব্যর্থতার ইনিংসে সর্বোচ্চ ৩১ রান আসে মাহমুদউল্লাহর ব্যাট থেকে।

তৃতীয় দিনের সকালে বল হাতে চমৎকার পারফর্ম করা দেবেন্দ্র বিশু ২৬ রান খরচায় পেয়েছেন ৪ উইকেট। ১৮ রান দিয়ে ৩ উইকেট শিকার রোস্টন চেসের।

নিউজ ডেস্ক / বিজয় টিভি

You might also like