সারা দেশে এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং শুরু

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয়ের লক্ষ্যে আজ থেকে সারা দেশে এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) সকালে রাজধানীর বনশ্রী-আজিমপুরসহ বেশ কিছু এলাকায় লোডশেডিংয়ের মাধ্যমে শুরু হয় এ প্রক্রিয়া।

প্রথম পর্যায়ে পরিকল্পিতভাবে দৈনিক এক ঘণ্টা করে লোডশেডিং করা হবে। তবে কোনো কোনো স্থানে তা দৈনিক দেড় থেকে দুই ঘণ্টাও হতে পারে। তবে শিল্প-কারখানায় বিদ্যুতের লোড রেশনিং করা হবে না।

এর আগে গতকাল সোমবার প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক বিশেষ বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বৈঠক শেষে  বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী জানান, আজ মঙ্গলবার থেকে এলাকাভিত্তিক লোডশেডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। পরিস্থিতির উন্নতি না হলে পরের সপ্তাহ থেকে হবে দুই ঘণ্টা।

এছাড়াও রাত ৮টার পর বন্ধ রাখতে হবে দোকানপাট। ইবাদতের সময় ছাড়া অন্য সময় উপাসনালয়ের এসি বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। এছাড়া কমে আসছে সরকারি অফিসের সময়সীমা। পরিস্থিতি বিবেচনায় সপ্তাহে একদিন পেট্রোল পাম্প বন্ধ রাখার চূড়ান্ত সিদ্ধান্তও আসতে পারে যে কোন সময়। তবে শিল্প কারখানায় নিরবচ্ছিন্ন জ্বালানি সরবরাহ গুরুত্ব পাবে।

তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী বলেন, আমরা আমাদের বিদ্যুৎ উৎপাদনকে কমিয়ে যাতে আমাদের খরচ কম হয়, যেটা সহনশীল হয় সেই পর্যায়ে নিয়ে আসা এবং ডিজেলে আমরা বিদ্যুৎ উৎপাদন আপাতত স্থগিত করলাম।

You might also like