স্পেনে দ্বিতীয় দিনের মতো করোনাভাইরাসে কেউ মারা যায়নি

দ্বিতীয় দিনের মতো স্পেনে করোনাভাইরাসে কেউ মারা যায়নি। এদিকে প্রতিদিনের পরিসংখ্যানে কিছু ‘অসঙ্গতি’ থাকার কথা স্বীকার করা হয়েছে। মঙ্গলবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় একথা জানায়।

দ্বিতীয় দিনের মতো স্পেনে করোনাভাইরাসে কেউ মারা যায়নি। এদিকে প্রতিদিনের পরিসংখ্যানে কিছু ‘অসঙ্গতি’ থাকার কথা স্বীকার করা হয়েছে। মঙ্গলবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় একথা জানায়। খবর এএফপি’র।

মন্ত্রণালয়ের প্রতিদিনের প্রতিবেদনে আগের সপ্তাহের ৩৪ জনের মৃত্যুর কথা উল্লেখ করা হলেও গত ২৪ ঘণ্টায় স্পেনে করোনাভাইরাসে কেউ মারা যায়নি বলে জানানো হয়। তাদের সোমবারের প্রতিবেদনেও বলা হয়েছিল আগের ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে কোভিড-১৯ ভাইরাসে মৃত্যুর কোন ঘটনা ঘটেনি।

মার্চের শুরু থেকে এই প্রথম দ্বিতীয় দিনের মতো দেশটিতে প্রতিদিনের হিসাবে প্রাণহানির সংখ্যা শূণ্যের কোটায় ।

খবরে বলা হয়, স্পেনে কোভিড-১৯ ভাইরাসে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যাও আগের তুলনায় অনেক হ্রাস পেয়েছে।

মহামারি করোনাভাইরাসে বিশ্বে অন্যতম ক্ষতিগ্রস্ত দেশ স্পেনে এ পর্যন্ত কোভিড-১৯ ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ২৭ হাজার ১২৭ জনে দাঁড়িয়েছে। তবে কো-অর্ডিনেশন সেন্টার ফর হেলথ অ্যালার্টস অ্যান্ড এমার্জেন্সিসের প্রধান ফার্নান্দো সিমন প্রতিদিনের হিসাবে স্পেনের উপাত্তে কিছু অসঙ্গতির কথা সাংবাদিকদের স্বীকার করেন। তিনি বলেন, এ ভুল সংশোধন করা হবে। উপাত্তে অসঙ্গতি দেখা দেয়ার পর থেকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় করোনা রোগী সনাক্তকরণে একটি নতুন পদ্ধতি চালু করেছে।

স্পেনে যত দ্রুত সম্ভব করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী সনাক্তকরণের ব্যাপারে এখন বেশি অগ্রাধিকার দেয়ার প্রতি জোর দেন সিমন। স্পেনে এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২ লাখ ৪০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে।

স্পেনে কোভিড-১৯ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়া রোধে আরোপ করা কঠোর লকডাউন ধাপে ধাপে শিথিল করা হচ্ছে। তবে স্পেনে গণ সমাবেশ বিষয়ে জারি করা কঠোর বিধিনিষেধ পালনে ব্যর্থতার বিরুদ্ধে কড়া হুশিয়ারী উচ্চারণ করা হয়েছে।