হাতিয়ায় পাঁচ জেলেকে বেঁধে নির্যাতন

২৬৭

নোয়াখালীর হাতিয়ায় জাল চুরির অপরাধে পাঁচ কিশোর জেলেকে একসাথে বেঁধে প্রকাশ্যে নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় স্থানীয় এক গ্রাম চৌকিদারের বিরুদ্ধে। এসময় ওই জেলেদের ১০ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়।

সোমবার (১৭ মে) হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল খায়ের এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, এ ঘটনায় গতকাল রবিবার রাতে নির্যাতনের শিকার কিশোর দাসের বাবা হরিপদ দাস বাদী হয়ে ছয় জনকে আসামি করে হাতিয়া থানায় একটি মামলা করেন। এখন পর্যন্ত ওই মামলার চারজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের আদালতে পাঠালে বিজ্ঞ বিচারক কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। রোববার (১৬ মে) সকালে হাতিয়ার চরকিং ইউনিয়নের জেলে পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

উল্লেখ্য, গতকাল রবিবার সকালে উপজেলার চরকিং ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ শুল্লুকিয়া গ্রামের জেলেপাড়ার গ্রাম্য সালিশে কিশোর জেলেদের দড়ি দিয়ে বেঁধে লাঠি দিয়ে বেধড়ক পেটানোর এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই নির্যাতনের এক মিনিট ১১ সেকেন্ডের একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হলে জেলা পুলিশ প্রশাসনের টনক নড়ে। পরে জেলার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার নির্দেশে হাতিয়া থানা পুলিশ তাৎক্ষণিক এ ঘটনায় পাঁচ জনকে আটক করে। ভিডিওতে দেখা যায়, স্থানীয় জেলেপাড়ার নারী-পুরুষের সামনে পাঁচ কিশোরকে লাঠিপেটা করা হচ্ছে। এই সময় ওই পাঁচ কিশোর এবং তাদের পরিবারের নারী সদস্যরা আহাজারি করে তাদের ছেড়ে দেয়ার আহ্বান জানায়। কান্নারত নারীরা এগিয়ে আসলে তাদেরও ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দেয়া হয়।

You might also like