১৫ কোটি টাকার ফ্ল্যাট বিক্রি; ধার-দেনা করে চলছে ফারুকের চিকিৎসা

চলচ্চিত্রের মিয়া ভাইখ্যাত অভিনেতা আকবর হোসেন পাঠান ফারুক দশ মাসের বেশি সময় ধরে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঢাকার এই সংসদ সদস্যের শারীরিক অবস্থার কখনও উন্নতি, আবার কখনও অবনতি হয়েছে কয়েক মাস ধরে। ফারুকের চিকিৎসার জন্য এরই মধ্যে বিক্রি করতে হয়েছে প্রায় পনেরো কোটি টাকা মূল্যের দুটি ফ্ল্যাট। ব্যাংক অ্যাকাউন্টও শূন্য হয়েছে। তবুও চালিয়ে যাচ্ছেন চিকিৎসা।

চিকিৎসার জন্য স্বজনদের কাছ থেকে ধার-দেনা করতে হয়েছে। জনপ্রিয় এই অভিনেতা চার মাস ছিলেন ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে। সেমি কোমায় কেটেছে আরও চার মাস। তবে এখন ফারুকের শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে। একটু একটু করে তিনি সুস্থ হয়ে উঠছেন। পাঁচ মাস আগে তাকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়।

তবে ফারুকের শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে ভালো। এখন নিজের পছন্দের সব ধরনের খাবার খেতে পারছেন। রক্তচাপ ও পূর্বের অন্যান্য যে সমস্যা ছিল, তাও এখন নিয়ন্ত্রণে। স্নায়ুতন্ত্রে নতুন কিছু সমস্যা দেখা দিয়েছে, যা আগে ছিল না।

ফারুকের একমাত্র ছেলে রওশন হোসেন পাঠান শরৎ জানান, পিতার সুস্থতার জন্য শেষ পর্যন্ত চেষ্টা করবেন। সরকারও সহযোগিতা করেছে, যা প্রয়োজনের তুলনায় কম। যেটুকু সহযোগিতা পেয়েছেন, তাতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে কৃতজ্ঞ।

%d bloggers like this: