২০২০ সালে বলিউড হারালো যে নক্ষত্রদের

১০৩

গত ১৪ জুন বান্দ্রার কার্টার রোডের ফ্ল্যাট থেকে মেলে সুশান্তের দেহ। প্রেম, মাদকাসক্তি, নেপোটিজম – একটার পর একটা বিতর্ক এই মৃত্যুকে ঘিরে। ‘কাই পো ছে’, ‘এমএস ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’, ‘ডিটেকটিভ ব্যোমকেশ বক্সি’-একের পর এক ভালো ছবি রয়েছে প্রয়াত তরুণ অভিনেতার ঝুলিতে।

১৯৭০ সালে রাজ কাপুর অভিনীত মেরা নাম জোকার ছবিতে রাজ কাপুরের ছেলেবেলার চরিত্রে অভিনয় করেন ঋষি কাপুর। হিরো হিসাবে পথচলা শুরু ১৯৭৩ সালে মুক্তি প্রাপ্ত ছবি ববির সঙ্গে। সত্তর ও আশির যুগে লায়লা মজনু, কর্জ, প্রেমরোগ, নাগিনা, চাঁদনি, হীনা, বোল রাধে বোল, অমর আকবর, অ্যান্টনি, কভি কভি’র মতো অজস্র হিট ছবি দর্শকদের উপহার দিয়েছেন। এপ্রিল ৩০, ২০২০ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

অস্কার মনোনীত ছবি সালাম বম্বের সঙ্গে ১৯৮৮ সালে রূপোলি পর্দায় পথচলা শুরু করেন ইরফান খান। তাঁর অভিনীত কিছু উল্লেখযোগ্য ছবি হল মকবুল, হাসিল, পান সিং তোমার, পিকু, হিন্দি মিডিয়াম। স্লামডগ মিলেনিয়ার, লাইফ অফ পাই,জুরাসিক ওয়ার্ল্ড, দ্য আমেজিং স্পাইডারম্যানের মতো হলিউড ছবিতে অভিনয় করেছেন ইরফান খান।

২০১৮ সালের মার্চ মাসে জানিয়েছিলেন চিকিৎসার জন্য অভিনয় থেকে বিরতি নিচ্ছেন। কারণটি জানা গিয়েছিল অল্প কয়েকদিনেই। নিউরো এন্ডোক্রিন টিউমার বাসা বেঁধেছে ইরফান খানের শরীরে। চিকিৎসার জন্য দীর্ঘদিন বিদেশে ছিলেন। ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে মুম্বাই ফিরেছিলেন। তারপর ২৯ এপ্রিল না ফেরার দেশে চলে যান তিনি।

অজয় দেবগন অভিনীত দর্শক প্রিয় ছবি ‘দৃশ্যম’ খ্যাত পরিচালক হিসেবে ব্যাপক পরিচিত ছিলেন নিশিকান্ত কামাত। লিভার সিরোসিসের সমস্যায় বেশ কিছুদিন ধরেই হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। কিন্তু ১৭ আগস্ট হাসপাতালেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

বলিউড যার পায়ের তালে, কোমরের ঠুমকায় নাচ শিখেছে, সেই কোরিওগ্রাফার সরোজ খানের মৃত্যু হয় গত ৩ জুলাই। ৭১ বছর বয়সে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় তার। ৪০ বছরের কর্মজীবনে তিনি ২০০০ বেশি গানে কোরিওগ্রাফ করেছেন। সরোজ খানের সঙ্গে সফলভাবে সমন্বয় করেছেন মাধুরী দীক্ষিত ও শ্রীদেবী।

পাঁচ দশকের সংগীত জীবনে শ্রোতাদের একের পর এক জনপ্রিয় গান দিয়ে মুগ্ধ করে রেখেছিলেন যে মানুষটি, তিনি এসপি বালাসুব্রহ্মণ্যম।দক্ষিণ ভারতের পাশাপাশি বলিউডি ছবিতে একাধিক জনপ্রিয় গান উপহার দিয়েছেন তিনি। প্রায় ৫০ বছরের কেরিয়ারে এসপি-র গানের সংখ্যা ৪০ হাজার! ‘পদ্মশ্রী’, ‘পদ্মভূষণ’এ সম্মানিত হন এসপি।

মঞ্চের মাধ্যমেই অভিনয় জগতে প্রবেশ করেন আসিফ বসরা। ১৯৯৮ সালে হরর-থ্রিলার সিরিজ ‘ওহ’তে ইতিহাসের শিক্ষক ওমকার দীক্ষিতের চরিত্রে অভিনয় করে পরিচিতি পান।সম্প্রতি ‘পাতাললোক’-এর মতো ওয়েব সিরিজে এবং ২০২০ সালে মুক্তি পাওয়া ‘হোস্টেজেস’ সিরিজেও অভিনয় করেছেন তিনি। ১২ নভেম্বর নিজের এপার্টমেন্টে আত্মহত্যা করেন তিনি।

You might also like