৪ মাইলফলক ছুঁয়েছে বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী

১০

মেট্রোরেল যুগে প্রবেশের সঙ্গে বাংলাদেশ চারটি মাইলফলক ছুঁয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, পদ্মা সেতুর পর মেট্রোরেল বাংলাদেশের জনগণের মাথার মুকুটে অহংকারের নতুন পালক।

বুধবার উত্তরার ১৫ নম্বর সেক্টর খেলার মাঠে দেশের প্রথম মেট্রোরেল-এমআরটি লাইন-৬ এর উত্তরা উত্তর থেকে আগারগাঁও অংশের উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত সুধী সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু বাংলাদেশ এবং বাঙালি জাতি সারা বিশ্বে মর্যাদা পেয়েছে। আজকে আমরা বাংলাদেশের জনগণের মাথার মুকুটে নতুন অহংকারের পালক সংযোজিত করলাম। এমআরটি লাইন-৬ এর বাকি অংশ খুব তাড়াতাড়ি উদ্বোধন করবো ইনশাল্লাহ।

বাংলাদেশ চারটি মাইলফলক স্পর্শ করেছে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, মেট্রোরেল উদ্বোধনের সঙ্গে প্রযুক্তিগত দিক থেকে অন্তত চারটি মাইলফলক বাংলাদেশের জনগণকে স্পর্শ করলো।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১. মেট্রোরেল নিজেই একটি মাইল ফলক। ২. এ প্রথম বাংলাদেশ বৈদ্যুতিক ট্রেনের যুগে প্রবেশ করলো। ৩. মেট্রোরেল দূর নিয়ন্ত্রিত পদ্ধতিতে পরিচালিত হবে। রিমোর্ট কন্ট্রোল দ্বারা, ডিজিটাল পদ্ধতিতে এটা পরিচালিত হবে। তার ফলে আমরা যে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়েছি এটা তারই একটা অংশ হিসেবে কাজ করবে। নতুন মাত্রা সংযোজিত হলো। ৪. বাংলাদেশ দ্রুত গতির ট্রেনের যুগে পদার্পণ করলো। এ মেট্রোরেলের সর্বোচ্চ গতি হবে ঘণ্টায় ১১০ কিলোমিটার।

মেট্রোরেল ব্যবহারে সবাইকে যত্নবান হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, অনেক টাকা খরচ করে মেট্রোরেল করা হয়েছে। এটা সংরক্ষণ করা, এর মান নিশ্চিত করা, পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখা, এর সব কিছু কিন্তু যারা ব্যবহার করবে তাদের দায়িত্ব।