৭ মাস পর কক্সবাজার-সেন্ট মার্টিন রুটে জাহাজ চলাচল শুরু

১১০

দীর্ঘ সাত মাস বন্ধের পর কক্সবাজার-সেন্ট মার্টিন নৌরুটে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু হয়েছে। তবে মিয়ানমারের অভ্যন্তরে সংঘর্ষের কারণে টেকনাফ-সেন্ট মার্টিন নৌরুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) সকাল ৬টার দিকে কক্সবাজারের নুনিয়ারছড়া বিআইডব্লিউটি ঘাটি থেকে কর্ণফুলী এক্সপ্রেস নামে একটি জাহাজ ৭৫০ জন যাত্রী নিয়ে সেন্ট মার্টিনের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়।

কর্ণফুলী এক্সপ্রেসের মালিক হোসাইন আহমেদ বাহাদুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এই মৌসুমে প্রথমবারের মতো কর্ণফুলী এক্সপ্রেস ৭৫০ জন যাত্রী নিয়ে সেন্ট মার্টিনের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে। আমাদের তরফ থেকে যাত্রীদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে।

জাহাজ মালিকদের সংগঠন সি ক্রুজ অপারেটর অ্যাসোসিয়েশনের (স্কোয়াব) সভাপতি তোফায়েল আহমদ জানান, মিয়ানমারের অভ্যন্তরে সংঘর্ষের কারণে টেকনাফ থেকে সেন্ট-মার্টিন রুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ করা হয়েছে। তবে বিকল্প উপায় হিসেবে কক্সবাজার এবং চট্টগ্রাম থেকে জাহাজ চলাচলের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আজ পরীক্ষামূলকভাবে এই মৌসুমের প্রথম জাহাজ কক্সবাজার থেকে ৭৫০ জন যাত্রী নিয়ে যাত্রা শুরু করেছে। আজ পর্যটকরা নিরাপদ যাতায়াত করতে সক্ষম হলে বাকি জাহাজগুলোও পর্যটক সেবায় চলাচল করবে।

ইশরাত জাহান নামে এক পর্যটক বলেন, প্রথমবারের মতো সেন্ট মার্টিন যাচ্ছি। অনেকদিন অপেক্ষায় ছিলাম আজকের দিনের জন্য। তবে একটু গরমের কারণে কষ্ট হলেও সেন্ট মার্টিন দেখতে পেলে সব কষ্ট মুছে যাবে।

ইমতিয়াজ আহমেদ নামে আরেক পর্যটক বলেন, যেদিন গণমাধ্যমে শুনেছি সেন্ট মার্টিন রুটে জাহাজ চলাচল শুরু করবে, সেদিন থেকেই অপেক্ষায় ছিলাম। আজ অনেক ভালো লাগছে।

এ বিষয়ে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মামুনুর রশীদ বলেন, আপাতত টেকনাফ থেকে জাহাজ বন্ধ রয়েছে। আজ কক্সবাজার থেকে সেন্ট মার্টিন রুটে পর্যটকবাহী জাহাজ কর্ণফুলী পরীক্ষামূলক চলাচল শুরু করেছে। পর্যায়ক্রমে অবস্থা বুঝে আবেদন করা জাহাজগুলোকেও অনুমতি দেওয়া হবে।

You might also like